ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • রোববার   ১৭ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ১ ১৪২৮

  • || ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

দৈনিক নেত্রকোনা

লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে সংঘর্ষ, কেন্দ্রে ভাঙচুর

দৈনিক নেত্রকোনা

প্রকাশিত: ৯ জুলাই ২০১৯  

নেত্রকোণার খালিয়াজুরি উপজেলায় ভোটার তালিকার ছবি তোলার জন্য লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশসহ ভোটার তালিকা নিবন্ধন কার্যক্রমে কর্মরত ডাটা-অপারেটরদের অবরুদ্ধ করে রাখে হামলাকারীরা।

রবিবার (৭ জুলাই) দুপুরে উপজেলার আব্দুল জব্বার রাবেয়া খাতুন বালিকা বিদ্যালয়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে খালিয়াজুরি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

খালিয়াজুরি থানার অফিসার ইনচার্জ এ টি এম মাহমুদুল হক জানান, রবিবার খালিয়াজুরি উপজেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের লোকজন আব্দুল জব্বার রাবেয়া খাতুন বালিকা বিদ্যালয়ে ভোটার তালিকার ছবি তোলার জন্য আসেন। অপরদিকে কল্যাণপুর গ্রামের পিজন মিয়াসহ কয়েকজন ছাত্রী একই কাজে সেখানে এলে লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্য মো. দিলোয়ার হোসেনের সঙ্গে তর্ক বাঁধে। বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনার জেরে কল্যাণপুর গ্রামের মো. গোলাপ মাস্টারের ছেলে পিজনের নেতৃত্বে ২০ থেকে ৩০ জন লোক পুলিশ ও ভোটার তালিকা নিবন্ধন কার্যক্রমে কর্মরতদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় পুলিশ সদস্য মো. দিলোয়ার হোসেন আহত হয় এবং নির্বাচন অফিসের ক্যামেরা ও ল্যাপটপ ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

খালিয়াজুরি উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. জিল্লুর রহমান বলেন, পুলিশসহ আমার লোকজনের ওপর হামলা করে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের পরামর্শক্রমে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে খালিয়াজুরি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।