ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

৩৩

মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ছাত্রকে বলৎকার, মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

তাবিজ দিয়ে কালো জাদু করে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে মাদ্রাসার এক ছাত্রকে বলৎকার করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মাওলানা বশীরুল ইসলামকে (৫৭) আটক করেছে পুলিশ। 

গতকাল সোমবার দিবাগত গভীর রাতে নেত্রকোনার খালিয়াজুরী ইসলামিয়া কওমি হাফিজিয়া মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ সময় নির্যাতিত ওই ছাত্রকে উদ্ধার করে খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। 

আটককৃত ওই মাদ্রাসা শিক্ষক বশীরুল ইসলাম গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায়।

ছাত্রের মা জানান, গত রোববার ভোর ৪টার দিকে তার ছেলেকে তাবিজ দিয়ে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ওই মাদ্রাসার টয়লেটের পাশে নিয়ে বলৎকার করেন বশীরুল ইসলাম। এ সময় একই মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমান তা দেখে মাদ্রাসা কমিটিকে জানায়।পরে কমিটির সভাপতি গোলাম আবু ইছহাক বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ তাকে আটক করে।

বিগত প্রায় এক মাস ধরে ভয় দেখিয়ে তার ছেলের সঙ্গে প্রধান শিক্ষক এ ধরনের কাজ করে আসছে বলে অভিযোগ করেন ওই ছাত্রের মা।তিনি বলেন,‘এসব বিষয় ইতিপূর্বে সে আমাদের জানালেও আমরা তেমন গুরুত্ব দেইনি।’

খালিয়াজুরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এটিএম মাহমুদুল হক জানান, বশীরুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বলৎকার করার বিষয়টি বশীরুল স্বীকার করেছেন। তার বিরুদ্ধে বলৎকারের অভিযোগে ছাত্রের মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এদিকে ওই ছাত্রকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা হচ্ছে বলেও জানান ওসি।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
এই বিভাগের আরো খবর