ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৩ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

৮৫১

ক্যালিফোর্নিয়ায়

ভয়াবহ দাবানলে নিহত বেড়ে ৫০

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০১৮  

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে ভয়াবহ দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০। দেশটির তরফ থেকে এই তথ্য গত মঙ্গলবার জানানো হয়। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন উদ্ধারকর্মীরা। ইতিমধ্যে তিন লক্ষাধিক মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার থেকে শুষ্ক আবহাওয়া ও ঝোড়ো বাতাসের কারণে বনাঞ্চল থেকে সৃষ্ট দাবানল দ্রুত দেশটির প্যারাডাইস শহরে তান্ডব চালায়। ইতিমধ্যে শহরটি পুড়ে ছারখার হয়ে গেছে। ঘর ছাড়া হয়েছে হাজারো মানুষ। দাবানলে নিহতদের অধিকাংশই প্যারাডাইস শহরের বাসিন্দা বলে জানানো হয়। ক্যালিফোর্নিয়ার বন ও অগ্নি নির্বাপক বিভাগের মুখপাত্র স্কট ম্যাক্লিন বলেন, শহরটি ধ্বংস হয়ে গেছে, সবকিছু শেষ কিছুই আর বাকি নেই তেমন।
প্যারাডাইস শহরে তান্ডব চালনোর পর দাবানল আঘাত হানে ক্যালিফোর্নিয়ার আরেক সৈকত শহর মালিবুতে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে ভয়াবহ দাবানলের ঘটনায় বনবিভাগের দুর্বল ব্যবস্থাপনাকে দায়ী করেছেন। এই ঘটনার পর গত শনিবার ট্রাম্প টুইটারে লিখেছেন, বন বিভাগের দুর্বলতা ব্যতীত বনে এমন মারাত্মক দাহের কোনো কারণ নেই। বন ব্যবস্থাপনার জন্য প্রতি বছর বিলিয়ন ডলার ব্যয় করা হচ্ছে। অথচ এখানে জনজীবনে এমন ক্ষতি হলো। এর প্রতিকার হচ্ছে অর্থ বরাদ্দ বন্ধ করে দেয়া।
বিশেষজ্ঞরা এই দাবানলকে ইতিমধ্যে ইতিহাসের সবচেয়ে প্রাণঘাতি বলে বর্ণনা করেছেন। তাদের বক্তব্য, এই আগুনের গ্রাস কেড়ে নিতে পারে আরও বহু মানুষের প্রাণ। কারণ, এখনও পর্যন্ত ওই এলাকার শতাধিক মানুষের কোনও খোঁজ নেই।
যেখানকার বনাঞ্চলে এই আগুন লেগেছে, তা প্রশান্ত মহাসাগরের কোলঘেঁষা। জানা গেছে, ক্যাম্প ফায়ার থেকেই এই দাবানল ছড়িয়ে পড়ে। উত্তাল ঝোড়ো হাওয়া আর খটখটে শুকনো পরিবেশ আগুন শিখাকে আরও বাড়িয়ে তুলছে। বনাঞ্চলের এক হাজার কিলোমিটারের বেশি ভূখন্ড পুড়ে ছারখার হয়ে গেছে। অসংখ্য বাড়িঘর, বস্তি, বাগান, রাস্তাঘাট ভস্মীভূত।
ওদিকে ক্যালফোর্নিয়ারই দক্ষিণাঞ্চলেও দু’টি দাবানল হয়েছে। তবে তার আকার বেশ বড় নয়। যদিও ওই ঘটনা দু’টিতেও প্রাণহানি হয়েছে। মারা গেছেন দু’জন।
এই পরিস্থিতিতে বৃষ্টির জন্য হাপিত্যেশ করছে ক্যালিফোর্নিয়া। কিন্তু আবহওয়া দফতর, এখনই বৃষ্টির কোনও পূর্বাভাস দেয়নি।বরং আরও দু’সপ্তাহ শুকনো আবহাওয়া থাকতে পারে বলে তারা জানিয়েছে।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
এই বিভাগের আরো খবর