ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

৪৩৪৫

বৈঠক থেকে মির্জা ফখরুলকে বের করে দিলেন মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০১৯  

বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক থেকে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে অপমান করে বের করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে বিএনপির স্থায়ী কমিটির দুই সদস্য মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে। মির্জা ফখরুলকে প্রকাশ্যে অপমান করায় দলের অভ্যন্তরে শুরু হয়েছে নানা গুঞ্জন ও সমালোচনা।

একটি সূত্র বলছে, ১৫ই জুন বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামের বৈঠকের সময় একাদশ জাতীয় নির্বাচনের ফলাফল বয়কট করে আবার একই সংসদে বিএনপির যোগ দেয়া নিয়ে বিভিন্ন প্রকারের প্রশ্ন করা হয় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে। কিন্তু মির্জা ফখরুল এই প্রশ্নের কোন সদুত্তর না দিয়েই স্কাইপে থাকা তারেক রহমানের সামনেই বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে অবিবেচক ও গুপ্তচর বলে অপমান করে বসেন। এসময় ক্রোধ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে দলের আরেক স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ঝামেলা না করে মির্জা ফখরুলকে বৈঠক থেকে বের হয়ে যাওয়ার হুমকি দেন। পরবর্তীতে আত্মসম্মান বাঁচাতে ও উপস্থিত নেতাদের রোষানল থেকে রক্ষা পেতে তড়িঘড়ি করে বৈঠক স্থল ত্যাগ করেন মির্জা ফখরুল।

এ প্রসঙ্গে মির্জা আব্বাসের সঙ্গে কথা হলে, তিনি বলেন, সবাইকে মনে রাখতে হবে এটি ছিলো স্থায়ী কমিটির বৈঠক। কিন্তু মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্থায়ী কমিটির সদস্য নন। আর এ কারণেই আমরা তাকে বেরিয়ে যেতে বলেছি। এটা কোনো বড় বিষয় নয়। আর এ বিষয়ে কোনো হাঙ্গামা করার প্রয়োজন নেই বলেই মনে করছি।

তবে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে বিএনপির অপর স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে জয়ী কোনো নেতা সংসদে যাক, তা বিএনপির নীতিনির্ধারণী মহলের কেউই কখনো চায়নি। আর এ কথাটা যখন মির্জা ফখরুল সাহেবকে বোঝাতে গেলাম তখন তিনি তেলে বেগুনে জ্বলে উঠলেন। যা ছিলো খুবই দুঃখজনক। এসময় আমরা তাকে শান্ত হতে বললে তিনি আরো রেগে যান। ফলে কথা কাটাকাটি হয়, এর বেশি কিছু হয় নি।

উক্ত বিষয়গুলো নিয়ে মির্জা ফখরুলের সঙ্গে কথা বলতে গেলে তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হন নি।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
এই বিভাগের আরো খবর