ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২২ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

দৈনিক নেত্রকোনা
২০৫

বর্ষার পানি স্কুলের মাঠে

দৈনিক নেত্রকোনা

প্রকাশিত: ৮ আগস্ট ২০১৯  

নওগাঁর রাণীনগরে সিম্বা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ পানিতে ডুবে আছে। মাঠটি নিচু হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে পানি ওঠে। এতে বছরের পর বছর ধরে খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

১৮৮৫ সালে উপজেলার সদর ইউপির সিম্বা গ্রামে স্থাপিত বিদ্যালয়টিতে আধুনিকতার ছোঁয়া বলতে একতলা পাকা ভবনটি। একমাত্র মাঠটি বছরের অর্ধেক সময় পানির নিচে থাকায় খেলাধুলা, প্রাত্যহিক সমাবেশসহ অন্যান্য কার্যক্রম থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ১৩৬ জন শিক্ষার্থী।

সিম্বা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনোয়ারা খাতুন বলেন, স্কুলটি রাণীনগর-আবাদপুকুর সড়কের পাশে অবস্থিত। মাঠ থেকে পানি বের হওয়ার জন্য পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া খাল পর্যন্ত একটি নালা কাটা হয়েছে। মাঠটি নিচু হওয়ায় বর্ষায় মাঠে পানি জমে। এ কারণে বছরের অর্ধেক সময় আমাদের খেলাধুলাসহ অন্যান্য কো-কারিকুলার অ্যাক্টিভিটিস বন্ধ রাখতে হয়।

প্রধান শিক্ষক আরো বলেন, বিষয়টি অনেকবার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। একবার মাঠে মাটি ফেলা হয়েছে। কিন্তু তা পর্যাপ্ত না হওয়ায় পানি নামছে না। বিষয়টি আবারো স্কুল কমিটি ও উপজেলা শিক্ষা অফিসে জানানো হয়েছে। 

উপজেলার ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান বলেন, মাটি ফেলে মাঠটি উঁচু করার পাশাপাশি বিদ্যালয়ে আধুনিক সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর চেষ্টা চলছে।

রাণীনগরের উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল বলেন, পর্যাপ্ত বরাদ্দ পেলেই সিম্বা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ মাটি ফেলে ভরাট করা হবে।

জনদূর্ভোগ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর