ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

৭৩২

ফের ফেল করলেন আশরাফুল

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০১৯  

বিশ্বকাপ ভরাডুবির পর থেকেই ফিটনেস নিয়ে বেশ সতর্ক বিসিবি। সেই ছোঁয়া লেগেছে ঘরোয়া ক্রিকেটেও। তাই এর আগের বছরগুলোতে বিপ টেস্টে পাস মার্ক ৯ থাকলেও এবার বাড়িয়ে তা করা হয়েছে ১১। এই টেস্টের গ্যাড়াকলে পরে প্রথম পরীক্ষায় ফেল করেছিলেন আশরাফুল, করলেন দ্বিতীয় টেস্টেও।  

এ বছরের ঘরোয়া লিগে খেলার সুযোগ পেতে হলে বিপ টেস্টে পাস করতে হবে এমন নিয়ম করার পর সবার প্রশংসা পায় বিসিবি। তবে ৩৩ বছরের বেশি বয়স্ক খেলোয়াড়দের জন্য বিপ টেস্টে ১১ করা যথেষ্ট কষ্টসাধ্য। তার ফল দেখা গেছে বিপ টেস্টের সময়েই। এবারই প্রথম বিধায় ক্রিকেটারদের কয়েকবার করে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ দিয়েছে ক্রিকেট বোর্ড। 

প্রথম টেস্টের পর দ্বিতীয় দফায়ও আশরাফুলের সঙ্গে বিপ টেস্টে উত্তীর্ণ হতে পারেননি সিনিয়র ক্রিকেটার তুষার ইমরান, আব্দুর রাজ্জাক, নাসির হোসেন, রুবেল হোসেন, সোহাগ গাজী এবং মোহাম্মদ শহীদ। আশরাফুল, রাজ্জাক এবং রুবেল প্রত্যেকের স্কোর ১০ করে। এছাড়া তুষার ইমরান ও নাসির হোসেন যথাক্রমে ১০.১ স্কোর করেছেন। 

তবে ব্যর্থতার ভীড়ে মোহাম্মদ শরীফ, ইমরুল কায়েস এবং পেসার আল আমিন ঠিক উৎরে গেছেন দ্বিতীয় দফা বিপ টেস্টে। শরীফ আর ইমরুল কায়েসের স্কোর ১১ করে। আর পেসার আল আমিন করেছেন ১২।

ক্রিকেটাররা নির্ধারিত ডেডলাইনের আগে আরও সুযোগ পাবেন  ফিটনেস টেস্ট দেয়ার। বিপ টেস্টে উত্তীর্ণ হলেই কেবল জাতীয় লিগে খেলার সুযোগ পাবেন ক্রিকেটাররা। 

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা