ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

১৬

জাল নথি, যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির আপিল খারিজ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮ নভেম্বর ২০১৯  

মাগুরার জোড়া খুনের মামলায় যাবজ্জীবন সাজার বিরুদ্ধে জাল নথির ভিত্তিতে করা এক আসামির আপিল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মূল কাগজপত্রের ভিত্তিতে করা আপিলের পেপারবুক প্রস্তুত করার জন্য সংশ্লিষ্ট আপিল শাখাকে বলা হয়েছে।

আদেশের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মো. শাহীন মৃধা। তিনি বলেন, ওই আসামিকে এখনও গ্রেফতারই করতে পারেনি পুলিশ।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মো. শাহীন মৃধা।

১৯৯৪ সালে মাগুরায় আসাদুজ্জামান ও হান্নান নামে দুই ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় করা মামলায় ১৯৯৫ সালে আসামি মোয়াজ্জেম হোসেনসহ কয়েকজনকে যাবজ্জীবন সাজা দেন মাগুরার জেলা ও দায়রা জজ আদালত। ২৩ বছর পলাতক থাকার পর আসামি মোয়াজ্জেম ২০১৭ সালের ২৭ মার্চ আত্মসমর্পণ করে কারাগারে যান। এরপর ওই বছরই তিনি তার সাজা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আপিল আবেদন করেন। আপিল নম্বর- ৯৩৩১/২০১৭। আপিল আবেদনের সঙ্গে সঙ্গে জামিন আবেদনও করেন তিনি।

হাইকোর্টের বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিমের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ আসামির জামিন আবেদন খারিজ করে দেন। কিন্তু দুই বছর পর মামলার নথি জাল করে হাইকোর্টে আরও একটি আপিল করেন। যার নম্বর- ১০৮৪/২০১৯। ওই আপিলে বলা হয়, ২০১৮ সালের ২১ নভেম্বর তাকে দণ্ড দিয়েছন দায়রা জজ আদালত। যদিও দুই যুগ আগে দায়রা আদালত তাকে যাবজ্জীবন সাজা দিয়েছিলেন। হাইকোর্টের আপিল করা নিয়ে ভয়াবহ এ জালিয়াতির বিষয়টি রাষ্ট্রপক্ষ হাইকোর্টের নজরে আনেন। এরপরই হাইকোর্ট আসামির জামিন বাতিল করে জালিয়াতির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দেন। সঙ্গে সঙ্গে তাদের গ্রেফতারেরও নির্দেশ দেন আদালত।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
এই বিভাগের আরো খবর