ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • মঙ্গলবার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১২ ১৪২৬

  • || ০১ রজব ১৪৪১

৬০

গাজীপুরের রিসোর্টে সালমান শাহ`র ভাস্কর্য

দৈনিক নেত্রকোনা

প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

আজ থেকে ২৪ বছর আগের কথা। আর দশটা শুক্রবারের মতোই শুরু হয়েছিলো পবিত্র জুম্মার দিন, শুক্রবার। হঠাৎ করে একটি খবর রেডিও টিভির কল্যাণে ছড়িয়ে পড়ে ঢালিউড সুপারস্টার সালমান শাহ আর নেই। 

সেই খবর শোকের সাগরে ভাসিয়ে যায় সালমান ভক্তদের। আজও সেই সাগরে বেদনার জল ঢালেন তারা। তেমনি এক ভক্তের নাম মো. রাশেদুল ইসলাম (রাশেদ খান)। যুবক রাশেদ প্রিয় নায়ককে আজও আইডল মানেন। তাকে ভালোবাসেন সেরা নায়ক হিসেবে।

অনেকদিন ধরেই ইচ্ছে ছিলো প্রিয় নায়কের জন্য কিছু করবেন। অবশেষে বাড়ির পাশে গড়ে তুলেছেন তিনি সালমান শাহের সবচেয়ে সুপারহিট সিনেমা 'স্বপ্নের ঠিকানা' নামের একটি রিসোর্ট। সেখানে গড়েছেন অমর নায়ক সালমানের একটি নান্দনিক ভাস্কর্য। 

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে গাজীপুরের উলুখোলা থানার বীরতুল উত্তরপাড়ায় অবস্থিত এ রিসোর্টে মোড়ক উন্মোচন হলো সালমানের ভাস্কর্যের। এখানে উপস্থিত ছিলেন সালমানের প্রথম সিনেমা 'কেয়ামত থেকে কেয়ামত'- এর নির্মাতা সোহানুর রহমান সোহান। আরও ছিলেন সালমানের 'সুজন সখী' সিনেমার পরিচালক শাহ আলম কিরণ, 'স্বপ্নের ঠিকানা' সিনেমার পরিচালক শিল্পী চক্রবর্তী। 

'স্বপ্নের ঠিকানা' রিসোর্টের প্রতিষ্ঠাতা রাশেদ খানের আমন্ত্রণে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের মহীলা বিষয়ক সম্পাদক ও সংসদ সদস্য মেহের আফরোজ চুমকী, সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখর। তারা সবাই এই রিসোর্টের মাধ্যমে সালমান শাহ'র প্রতি ভালোবাসা ও সম্মান দেখানোর প্রচেষ্টার জন্য রাশেদ খানকে অভিনন্দিত করেন। 

রাশেদ খান 'স্বপ্নের ঠিকানা' নিয়ে বলেন, 'সালমান শাহ আমার স্বপ্নের নায়ক, স্বপ্নের মানুষ। তার জন্য কিছু করতে পেরে আমার খুব আনন্দ হচ্ছে। আশা করি সালমান ভক্তরা এখানে ঘুরতে আসবেন। সালমান শাহকে যারা ভালোবাসেন তাদের আমি অন্তর থেকে স্বাগত জানাই।' 

তিনি আরও বলেন, বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে তিনি এই রিসোর্ট বানাননি। তবে কেউ শুটিং বা পিকনিকের জন্য চাইলে সুলভমূল্যে এটি ভাড়া নিতে পারবেন। এখানে দুটি দৃষ্টিনন্দন বাড়ি, নান্দনিক লোকেশনের ব্যবস্থা আছে। পাশাপাশি শিশুদের জন্যও আছে বিনোদনের নানা ব্যবস্থা।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
section>