ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • রোববার   ০৭ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৫ শাওয়াল ১৪৪১

দৈনিক নেত্রকোনা
৬২

ক্যাসিনো ইস্যুতে বিএনপিতে তোলপাড়, বাড়ছে অস্বস্তি

দৈনিক নেত্রকোনা

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০১৯  

ক্যাসিনো কেলেঙ্কারিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের নাম আসার পর থেকে রাজনৈতিক মহলে আলোচনা-সমালোচনা থামছেই না। জানা গেছে, ক্যাসিনো ইস্যুতে মির্জা ফখরুলসহ অন্যান্য নেতাদের সংশ্লিষ্টতায় দলের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে বিভক্তি। বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে দলটির তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যেও।

এদিকে সূত্র বলছে, প্রথম থেকেই স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ বেশ কিছু নেতা ক্যাসিনো ইস্যুতে বিএনপি নেতাদের জড়িত থাকায় ক্ষুব্ধ মনোভাব প্রকাশ করলেও বিষয়টি নিয়ে তৃণমূলেও প্রভাব পড়েছে। তৃণমূল, বিশেষ করে নোয়াখালীর জয়নাল আবেদীন ফারুকপন্থী নেতারা বলছেন, বড় বড় নেতারা ঠিকই ক্যাসিনো থেকে টাকার ভাগ পেতেন। অথচ দলের জন্য এতো কিছু করেও দিন এনে দিনে খেতে হয় আমাদের। বিষয়টি দুঃখজনক।

এদিকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্পষ্ট করে বলেছেন যে, ক্যাসিনো থেকে প্রাপ্ত কোনো অর্থই তিনি নিজের জন্য ব্যয় করেননি। তার উপার্জিত সকল অর্থই তিনি ব্যয় করেছেন দলের স্বার্থে। এছাড়া ক্যাসিনোর মাধ্যমে উপার্জিত অর্থের বিরাট অংশই লন্ডনে পাঠিয়ে দেয়া হতো বলে জানান মির্জা ফখরুল।

বিষয়টি নিয়ে দলের মধ্যে যে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে তার ইঙ্গিত মিলেছে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদের কথাতেও। তিনি বলেন, ক্যাসিনোর টাকার ভাগাভাগিতে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সম্পৃক্ততার কথা শুনেছি। তবে কে জড়িত সেটা আমার জানা নেই। এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারবো না। তবে বিষয়টিতে আমরাও বিভ্রান্ত। সকলে এক সঙ্গে রাজনীতি করলেও কেন শুধু মির্জা ফখরুল ক্যাসিনোর টাকা পাবেন, তা আমার বোধগম্য নয়।

অপর দিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, মির্জা ফখরুল বোঝাতে চাচ্ছেন যে, তিনি ক্যাসিনোর টাকার ভাগ লন্ডনে পাঠিয়েছেন। কিন্তু এমন যদি হতো তবে তারেক রহমান তাকে দল থেকে বের করে দিতে চাইতেন না। কারণ মির্জা ফখরুলের ভাষ্য মতে, তারেক রহমান তো নিজেই তার থেকে টাকা নিয়েছেন। আর এ কারণেই আমাদের মনে হচ্ছে মির্জা ফখরুল মিথ্যা বলছেন।

এই বিষয়ে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিক বলেন, মির্জা ফখরুল বলছেন তিনি নাকি তারেক রহমানকে ক্যাসিনোর টাকার ভাগ দিয়েছেন। কিন্তু আসল ঘটনা হচ্ছে, মির্জা ফখরুল যে পরিমাণ টাকা পেয়েছেন তা সঠিকভাবে বণ্টন করেননি। আর এই কারণেই তারেক রহমান চাচ্ছেন মির্জা ফখরুলকে দল থেকে বের করে দিতে।

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর