ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

দৈনিক নেত্রকোনা
২৪০

করোনা: সাবধানতা অবলম্বন করুণ এই ১০ জিনিস ব্যবহারে

দৈনিক নেত্রকোনা

প্রকাশিত: ১৯ মার্চ ২০২০  

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বেসামাল বিশ্ব। ইউরোপের দেশগুলোতে এই শঙ্কা দিন দিন বেড়েই চলছে। আক্রান্তের সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। এ ভাইরাস মোকাবেলায় ওষুধ সেভাবে আবিষ্কার হয়ি এখনো। তবে এ ভাইরাসে যাতে আক্রান্ত না হয় সেজন্য বিভিন্ন সচেতনতা অবলম্বন করতে বলেছেন বিশেষজ্ঞরা।

দৈনন্দিন ব্যব্যহারের ক্ষেত্রেও ঠিক সেরকম কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, যেগুলো ব্যব্যহার বা সংরক্ষনের ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করা জরুরী।

আমরা প্রতিদিনই পরিবারের সদস্য, বন্ধুবান্ধবসহ অন্যান্য কাছের মানুষের সঙ্গে অনেক দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় অনেক কিছু ভাগাভাগি করি। তবে এই অভ্যাসের মাধ্যমে ছড়াতে পারে করোনাভাইরাসসহ বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণু।

এ বিষয়ে ক্যালিফোর্নিয়ার একটি হাসপাতালের এক চিকিৎসক বলেন, মূলত আমরা সম্পর্কের খাতিরে বিভিন্ন বস্তু ভাগাভাগি করি না, আমরা জীবাণুও ভাগাভাগি করি। ক্রিস্টিন আর্থুর নামের ওই চিকিৎসক ১০টি জিনিস ভাগাভাগি করা থেকে দূরে থাকতে বলেছেন, যা থেকে ছড়াতে পারে বিভিন্ন ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণু।

সেগুলো হলো-

দাঁত মাজার ব্রাশ: করোনাভাইরাস মূলত লালা থেকেই বেশি ছড়ায়। সেক্ষেত্রে একজনের ব্রাশ অন্যজন ব্যবহার করলে সেক্ষেত্রে সহজে ছড়াতে পারে এ ভাইরাস ছাড়াও অন্যান্য ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণু।

মেকআপ এবং মেকআপের ব্রাশ: মেয়েরা প্রায়ই নিজেদের মেকআপ এবং এর অন্যান্য সরঞ্জাম কাছের মানুষদের সঙ্গে ভাগাভাগি করে। ফলে ছড়ায় জীবাণু। জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়া থেকে রক্ষা পেতে এমন কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে।

কলম: গবেষকরা বলছেন, একটি কলমে টয়লেটের চেয়েও বেশি পরিমাণ জীবাণু থাকে। তাই ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস থেকে দূরে থাকতে কলম ভাগাভাগি থেকে দূরে থাকতে বলা হয়েছে।

কাটা চামচ ও স্ট্র: অনেক সময় দেখা যায় দুই বন্ধু একই স্ট্র দিয়ে জুস পান করছেন। অথবা একই চামচ দিয়ে নুডলস কিংবা অন্যান্য খাবার খাচ্ছেন। এতে একে অন্যের সঙ্গে জীবাণু ভাগাভাগি করছেন।

ফাস্ট ফুডের প্লেট: রেস্টুরেন্ট কিংবা বাসায় একটি ফাস্ট ফুডের প্লেট অনেকেই স্পর্শ করে। এতে জীবাণু একজন থেকে অন্যের শরীরে প্রবেশ করে। তাই এর জীবাণু থেকে রক্ষা পেতে এমন কাজ করার ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

মোবাইলফোন: ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন অথবা বাসা/অফিসের ল্যান্ডফোন অনেকে ধরেন। তাই জীবাণু থেকে রক্ষা পেতে এটা এড়িয়ে চলতে হবে।

মোবাইলের হেডফোন: অনেকেই বন্ধু কিংবা ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে হেডফোন ভাগাভাগি করেন। এতেও ছড়ায় জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়া।

তোয়ালে/গামছা: বিশেষ করে ভেজা টাওয়েলে বসবাস করে অনেক জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়া। তাই ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে এটা ভাগাভাগি থেকে বিরত থাকতে হবে।

রেজার: একটি রেজার একাধিক ব্যক্তি ব্যবহার করে। সেক্ষেত্রে একজনের দেহের জীবাণু আরেকজনের শরীরে সহজে প্রবেশ করে।

নেইল কাটার: নখ কাটার যন্ত্র তথা নেইল কাটার একাধিক ব্যক্তি ব্যবহার করলে একজন থেকে আরেকজনের দেহে ছড়াতে পারে বিভিন্ন ভাইরাস-ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণু। এতে জীবাণুর সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে নেইল কাটার ভাগাভাগি থেকে বিরত থাকতে হবে।

স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর