ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৩ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

৭২৫

রক্ষাকবচ

কনডম নাকি পিল? কোনটা বেশি নিরাপদ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩ ডিসেম্বর ২০১৮  

উদ্দাম সেক্স-এর রক্ষাকবচ দুটো--পিল এবং কনডম! কিন্তু ব্যবহারের আগে জেনে নিন, কোনটা বেশি নিরাপদ ও স্বাস্থ্যকর? পিল এবং কনডম দুটো পদ্ধতিই সমান কার্যকর। কিন্তু পুরোটাই নির্ভর করছে কোন সময়ে নেয়া হচ্ছে এবং কীভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে, তার উপর। তবে অনেক ক্ষেত্রেই সেক্স-এর সময় কনডম ছিঁড়ে যেতে পারে। তাই আগে কনডমের সঠিক ব্যবহার জেনে নিয়ে তবেই ব্যবহার করুন।

কনডম শুধুমাত্র জন্মনিরোধকই নয়, এসটিডি (সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিসিস) অর্থাৎ যৌনরোগ থেকেও সম্পূর্ণ সুরক্ষা দেয়।

অন্যদিকে, পিল অপ্রত্যাশিত জন্মনিয়ন্ত্রণ করতে পারলেও এইচআইভি বা এইডস থেকে সুরক্ষা দিতে পারে না। উলটে এই ট্যাবলেটের দীর্ঘ ব্যবহারে শরীরে নানা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া শুরু হয়।

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, সুরক্ষা ছাড়া সেক্স-এর পর প্রায় ৯৯ শতাংশ মহিলাই পিলে ভরসা করেন। তবে মনে রাখতে হবে, পিল কিন্তু কখনও-ই কনডমের মতো নিত্য ব্যবহার বা সেবন করা যায় না। একমাত্র জরুরি পরিস্থিতিতেই পিল খেতে পারেন।

বাজারে হাজাররকম পিল-এর ছড়াছড়ি! এর মধ্যে কোনটি আপনার জন্য ঠিক, তা জানতে অবশ্যই কোনো গাইনোকলজিস্টের পরামর্শ নিন। দীর্ঘদিন পিল খাওয়ার অভ্যাস থেকে নানা শারীরিক সমস্যার ঝুঁকি থাকে যা কনডমের ক্ষেত্রে নেই বললেই চলে। তাই নিজের শারীরিক অবস্থা বুঝে তবেই পিল খান। সাধারণত ২৫-৪৫ বছরের মহিলারা মাঝেমধ্যে পিলে নির্ভর করতে পারেন। কিন্তু টিনএজারদের ক্ষেত্রে এটি একেবারেই সুরক্ষিত নয়।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
এই বিভাগের আরো খবর