ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৮ ১৪২৬   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

১৮

আবরারের পরিবারের জন্য সব সময় দরজা খোলা : আইনমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২ নভেম্বর ২০১৯  

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার বিচারে প্রসিকিউশন টিমে নিহতের বাবার পছন্দের দুজন আইনজীবী থাকবে বলে জানিয়েছেন আইন, বিচার ও সংসদ-বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

তিনি বলেন, আবরারের পরিবারের সদস্যদের জন্য আমার দরজা সব সময় খোলা। বিচারকাজ চলার সময় যদি কিছুর প্রয়োজন মনে হয় তাহলে তারা অবশ্যই যোগাযোগ করতে পারেন।
বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) রাজধানীর গুলশানে আইনমন্ত্রীর বাসায় আবরার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান। সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

আইনমন্ত্রী বলেন, আবরার ফাহাদের বাবা বিচারের জন্য প্রসিকিউশন টিমে দুজন আইনজীবী দিতে চেয়েছেন। তাদের নামও দিয়েছেন। তারাও আদালতে থাকবেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘আইনের ব্যত্য়য় না ঘটিয়ে যত দ্রুত সম্ভব এ হত্যার বিচারকাজ কীভাবে সম্পন্ন করা যায়, আমরা সেই পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। আবরার ফাহাদের বাবাও চেয়েছেন মামলাটি যেন দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে হয় এবং তা-ই হচ্ছে।’

তিনি বলেন, আবরারের পরিবারের সদস্যদের জন্য আমার দরজা সব সময় খোলা। বিচারকাজ চলার সময় যদি কিছুর প্রয়োজন মনে হয় তাহলে তারা অবশ্যই যোগাযোগ করতে পারেন। 
তিনি আরও বলেন, ফাহাদ হত্যা মামলার বিচারকাজের গতি দেখে তার বাবা সন্তোষ প্রকাশ করেন। এছাড়া ফাহাদের বাবা আইনানুগভাবে কোনো ভুলত্রুটি না রেখে যত দ্রুত সম্ভব বিচার সম্পন্ন করার বিষয়টি বলেছেন, যা আমি আগেই বলেছিলাম যে, বিচার দ্রুত হবে।

গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বুয়েটের ১৭তম ব্যাচের ইলেকট্রিক অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র আবরার ফাহাদ রাব্বীকে। রাত ৩টার দিকে হলের দ্বিতীয় তলা থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করে কর্তৃপক্ষ।

ওই ঘটনায় একাধিক ভিডিও ফুটেজ পাওয়া যায়। আবরারকে হত্যার ঘটনায় তার বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। পরে হত্যায় সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে বুয়েট ছাত্রলীগের ১৩ নেতাকর্মীসহ ২১ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
এই বিভাগের আরো খবর