ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

১১

অমর্ত্য সেনের চোখে ভারতের চেয়ে বাংলাদেশ সফল

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০১৯  

গড় আয়ু ও নারী শিক্ষাসহ অনেক ক্ষেত্রেই বাংলাদেশ এখন ভারতের চেয়ে বেশি সফল বলে মন্তব্য করেছেন ১৯৯৮ সালে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার অর্জনকারী ভারত রত্ন খ্যাত অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন।

৬ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাগাজিন দ্য নিউইয়র্ককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, গড় আয়ু, নারী শিক্ষাসহ বহু ক্ষেত্রে এখন ভারতের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। এছাড়া ভারতের সমাজে হিন্দুত্ববাদী চিন্তার সংকীর্ণতা যেভাবে প্রতিফলিত হচ্ছে বাংলাদেশের চিত্র সেদিক থেকে অনেকটাই ভিন্ন বলে মনে করেন তিনি। সাক্ষাৎকারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নীতির কঠোর সমালোচনা করেন অমর্ত্য সেন।

তিনি বলেন, ইচ্ছা করেই ভারতের বহু ধর্মীয় ও বহুনৃতাত্ত্বিক পরিচয় নষ্ট করার চেষ্টা করছে মোদি সরকার। গেটস ফাউন্ডেশন নরেন্দ্র মোদিকে অ্যাওয়ার্ড দেবে এমন খবরে বিস্মিত হয়েছেন বলে জানান অমর্ত্য সেন।

ম্যাগাজিন দ্য নিউইয়র্ককে অমর্ত্য সেন আরো বলেন, মাত্র ১২ বছর আগে ২০০৭ সালে আমাদের একজন মুসলিম প্রেসিডেন্ট, একজন শিখ প্রধানমন্ত্রী এবং শাসক দলের একজন খ্রিস্টান নেতা ছিলেন। সে সময় সংসদের বেশিরভাগ সদস্য হিন্দু হলেও কেউ হিন্দুত্ববাদী চিন্তা চাপিয়ে দিতে চাননি। অথচ হঠাৎ করেই আজ আমরা এমন এক পরিস্থিতিতে এসে পড়েছি যেখানে গরুর মাংস খাওয়ার কারণে একজন মুসলিমকে প্রকাশ্যেই নিপীড়ন এবং হত্যা করা হচ্ছে। বহুমুখী আত্মপরিচয়ের সহাবস্থান এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির প্রসঙ্গে অমর্ত্য সেন বাংলাদেশের ব্যাপক প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আজ অনেক দিক থেকেই ভারতের চেয়েও বেশি সফল। আগে বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ভারতের চেয়ে কম ছিল। কিন্তু এখন বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ৫ বছর বেশি। নারী শিক্ষার হারও বেশি বাংলাদেশে। আর ভারতের হিন্দু চিন্তায় ব্যাপক হারে যে সাম্প্রদায়িক সংকীর্ণতার উত্থান ঘটেছে বাংলাদেশের মুসলিম চিন্তায় কিন্তু সেরকম সংকীর্ণতা নেই। বাংলাদেশে বহুমুখী আত্মপরিচয়ের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান দেশটির এই অগ্রগতিতে ভূমিকা রেখেছে।

দৈনিক নেত্রকোনা
দৈনিক নেত্রকোনা
এই বিভাগের আরো খবর